;

নেত্রকোনা

ইতিহাস প্রাচীন ঐতিহ্যে টই-টুম্বুর ও ঐতিহ্যের বিচিত্র ঘটনা সম্ভারে গর্বিত

নেত্রকোনার ইতিহাস

ব্রহ্মপুত্র নদের পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত নেত্রকোনা জেলার ইতিহাস প্রাচীন ঐতিহ্যে টই-টুম্বুর ও ঐতিহ্যের বিচিত্র ঘটনা সম্ভারে গর্বিত। বিভিন্ন তাত্ত্বিক পর্যালোচনায় স্পষ্টতঃ প্রমাণ করে যে সাগর বা সমুদ্রগর্ভ থেকে জেগে ওঠায় এ অঞ্চলটি মানব বসবাসের যোগ্য ভূমিতে পরিণত হয়েছিল। গারো পাহাড়ের পাদদেশ লেহন করে এঁকেবেঁকে কংস, সোমেশ্বরী, গণেশ্বরী, মহেশ্বরী, গোরাউৎরা নদীসহ অন্যান্য শাখা নদী নিয়ে বর্তমান নেত্রকোণা জেলার জলধারার উদ্ভব। এ জেলার…

বিস্তারিত

রানীখং মিশন – ক্যাথলিক উপাসনালয়, নেত্রকোনা

রানীখং মিশন – ক্যাথলিক উপাসনালয়, নেত্রকোনা

প্রকৃতির অপূর্ব লীলাভূমি আমাদের এই দেশ বাংলাদেশ। নদী, পাহাড়, সাগর যেমন আমাদের দেশকে সাজিয়ে গুছিয়ে সুন্দর করে রেখেছে তেমনি এই সৌন্দর্যকে আরো শতগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে এদেশের সহজ সরল মানুষ গুলো। অসাম্প্রদায়িক আমাদের দেশে আছে সকল ধর্মের মানুষের বসবাস।মুসলমানদের পাশাপাশি বসবাস

অপার্থিব সৌন্দর্যের নেত্রকোণার সোমেশ্বরী নদী

অপার্থিব সৌন্দর্যের নেত্রকোণার সোমেশ্বরী নদী

বাংলাদেশ মানেই অসংখ্য নদ-নদী দিয়ে ঘেরা অবারিত প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। নদী শুধু এ দেশের মানুষের জীবন-জীবিকার অংশ নয়, নদী এদেশের সৌন্দর্যের অন্যতম এক অনুষঙ্গ। প্রকৃতিপ্রেমী ও ভ্রমণপিপাসুদের জন্য নদীর বুকে ঘুরে বেড়ানো দারুন এক আকর্ষণের নাম। নদ-নদী অধ্যুষিত এলাকার সৌন্দর্যে যারা

ভ্রমণে নেত্রকোনার বিরিশিরি

ভ্রমণে নেত্রকোনার বিরিশিরি

নান্দনিক প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের স্থান নেত্রকোনা জেলার দূর্গাপুরের ঐতিহ্যবাহী গ্রাম বিরিশিরি। যদি ভাবছেন ছুটির দিনগুলোতে কোথায় ঘুরতে যাওয়া যায়, তাহলে চলে যেতে পারেন অপার সৌন্দর্যমন্ডিত বিরিশিরিতে। বিরিশিরির মূল আকর্ষণ বিজয়পুরের চীনামাটির পাহাড়, যার বুক চিরে জেগে উঠেছে নীলচে-সবুজ পানির হ্রদ। সাদামাটি

নেত্রকোনার বালিশ মিষ্টি

নেত্রকোনার বালিশ মিষ্টি

‘বালিশ’! নামটা সকলের কাছেই পরিচিত। মানুষ দিনের ক্লান্তি শেষে মাথায় দিয়ে আরামে বিছানায় ঘুমায়। নেত্রকোনা তথা ভাটি বাংলার মানুষ বালিশ মাথায় দিয়ে ঘুমায় বটে। তবে আরেক লোভনীয় সুস্বাদু বালিশ খায়ও! আপনিও খাবেন। শুনে অনেকে অবাক হতে পারেন। কিন্তু আসলে তাই।

উপজাতীয় কালচারাল একাডেমী, নেত্রকোনা

উপজাতীয় কালচারাল একাডেমী, নেত্রকোনা

উপজাতীয় কালচারাল একাডেমী নেত্রকোনা জেলার দুর্গাপুর উপজেলার বিরিশিরিতে অবস্থিত। গারো, হাজং, কোচ, বানাই, হদি, মান্দাই প্রভৃতি নৃগোষ্ঠী অনাদিকাল থেকে নিজস্ব জীবন ও সমাজ তথা ভাষা, ধর্ম ও সংস্কৃতি লালন করে বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলীয় জেলাগুলিতে বসবাস করে আসছে। এই সকল নৃগোষ্ঠীর জীবন

কমলা রাণীর দিঘী, নেত্রকোনা

কমলা রাণীর দিঘী, নেত্রকোনা

১৫ শতকের শেষ দিকে সুসং দুর্গাপুরের রাজা জানকি নাথ বিয়ে করেন কমলা দেবী নামে এক সুন্দরী মহিলাকে। রাণী কমলা দেবী যেমনি রূপেগুণে সুন্দরী ছিলেন তেমনি ছিলেন পরম ধার্মিক। রাজা জানকি নাথও ছিলেন পরম প্রজা হিতৈষী। রাণীর গর্ভে একপুত্র সন্তান জন্ম

জেনে নিন নেত্রকোনার দর্শনীয় স্থানসমূহ সম্পর্কে

জেনে নিন নেত্রকোনার দর্শনীয় স্থানসমূহ সম্পর্কে

সুসং দুর্গাপুর। নেত্রকোনা জেলার সর্ব উত্তরে ভারতের মেঘালয়ের গারো পাহাড়ের কোল ঘেঁসে বেড়ে ওঠা এক জনপদের নাম। এর উত্তরে ভারত,দক্ষিণে পূর্বধলা ও নেত্রকোনা সদর উপজেলা, পশ্চিমে ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলা এবং পূর্বে কলমাকান্দা উপজেলা। যেখানে বয়ে গেছে টলটলে জলের সোমেশ্বরী নদী,

লেঙ্গুরা, পটে আঁকা ছবি যেনো

লেঙ্গুরা, পটে আঁকা ছবি যেনো

নিসর্গের অপরূপ ছায়ায় বেড়ে ওঠা একটি গ্রাম লেঙ্গুরা। শান্ত সুনিবিড় জীবন যাপন আর জলে জঙ্গলের সুনিবিড় পরশে বেড়ে ওঠা একটি জনপদ এটি। শুধু প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্যই নয়, বিভিন্ন জাতীয়তাবাদী আন্দোলনেও এই জনপদের রয়েছে ব্যাপক ভূমিকা। মুক্তিযুদ্ধ, টঙ ও ব্রিটিশ বিরোধী