;

মুন্সীগঞ্জ

ইতিহাস,ঐতিহ্য আর বহু কীর্তিমান মনীষীর স্মৃতিধন্য

মুন্সীগঞ্জের ইতিহাস

ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি দিল্লির বাদশাহ দ্বিতীয় শাহআলমের কাছ থেকে ১৭৬৫ খ্রিস্টাব্দে বাংলা, বিহার, উড়িষ্যার দেওয়ানী লাভ করেন । এই দেওয়ানী কে প্রথম রাজস্ব প্রশাসন হিসেবে অভিহিত করা যায়। সে সময় মুন্সিগঞ্জ ঢাকা জেলার অংশ ছিলো। ১৭৬৯ খ্রিস্টাব্দে মিঃ মিডেলটন স্বাধীনভাবে রাজস্ব প্রশাসন পরিচালনা করতে থাকেন। তিনি সর্বোচ্চ জমিদারি ডাককারীদের অনুকূলে মহাল গুলো লিজ দিয়েছিলেন। এদিকে লিজপ্রাপ্ত জমিদারগণ আবার সাব লিজ…

বিস্তারিত

বিক্রমপুর জাদুঘর, মুন্সীগঞ্জ

বিক্রমপুর জাদুঘর, মুন্সীগঞ্জ

জাদুঘর হল ইতিহাস আর ঐতিহ্যের এক অসাধারণ সংরক্ষণাগার যেখানে প্রতিটি মানুষ হারিয়ে যেতে পারে বহু ইতিহাসের মাঝে। তেমনি এক জাদুঘর হল বিক্রমপুর জাদুঘর। বাংলাদেশের মুন্সিগঞ্জ জেলায় অবস্থিত জমিদার যদুনাথ বাবুর জমি অধিগ্রহণের মাধ্যমে ২০১৪ সালে জাদুঘরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করে বাংলাদেশ

স্যার জগদীশ চন্দ্র বসুর বাড়ী, মুন্সিগঞ্জ

স্যার জগদীশ চন্দ্র বসুর বাড়ী, মুন্সিগঞ্জ

বিজ্ঞান মানেই বিশাল এক জগৎ। যে জগতের পুরোটা জুড়েই বহু প্রশ্ন, উত্তর, সমাধান আর যুক্তি৷ বাংলাদেশে বর্তমান সময়ে বিজ্ঞানের বিশাল এক প্রসার লক্ষ করার মত বিষয়। তবে যে বিজ্ঞানের এমন জয় যাত্রা আজ আমরা দেখতে পাচ্ছি তার পেছনের বহু পথিকদের

বার আউলিয়ার মাজার, মুন্সীগঞ্জ

বার আউলিয়ার মাজার, মুন্সীগঞ্জ

ঢাকার খুবই নতুন নিকটের একটি জেলা হল মুন্সিগঞ্জ। নদী ও এর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের দরুন প্রায় সকল ভ্রমণ পিপাসুদের কাছেই এটি একটি উপভোগের জায়গা বলে জনপ্রিয়। এই সকল কিছুর বাইরেও মুন্সিগঞ্জের রয়েছে ঐতিহাসিক গুরুত্ব। বাংলাদেশের প্রাচীন ইতিহাসের বহু অংশ জুড়ে এই

মেঘনা ভিলেজ হলিডে রিসোর্ট, মুন্সিগঞ্জ

মেঘনা ভিলেজ হলিডে রিসোর্ট, মুন্সিগঞ্জ

শহরের বদ্ধ পরিবেশ থেকে বেরিয়ে খোলা প্রাণে নিশ্বাস নিতে আমাদের মন হাঁপিয়ে উঠে। কিছুদিন প্রাকৃতিক পরিবেশে আনন্দময় অবকাশ যাপন এই যান্ত্রিক জীবনের অবসাদ নিমিষেই উড়িয়ে দেয়। তাই নিরিবিলি ছুটি কাটানোর জন্য রিসোর্টের জুরি নেই । আর তা যদি হয় প্রকৃতিঘেরা

সোনারং জোড়া মঠ, মুন্সিগঞ্জ

সোনারং জোড়া মঠ, মুন্সিগঞ্জ

এদেশের আনাচে কানাচে এখনো ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে ঐতিহাসিক নানা প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা। কয়েকশত বছর যাবত এই সব স্থাপত্য এখনো ভাব গাম্ভীর্য সমেত দাঁড়িয়ে আছে হারানো কালের স্মৃতি নিয়ে। যদিও আমাদের সরকারের পক্ষ থেকে এইসব স্থাপনা রক্ষায় তেমন কারকরই ভূমিকা পালন করতে

বাবা আদম মসজিদ, মুন্সিগঞ্জ

বাবা আদম মসজিদ, মুন্সিগঞ্জ

ভারতীয় উপমহাদেশে ইসলাম প্রচারের শুরু থেকেই নানা সাধক সুদূর আরব থেকে এসে এখানে ইসলাম প্রচারে আত্মউৎসর্গ করেছেন। তেমনি এক সাধক ও ধর্মপ্রচারক হজরত বাবা আদম। বাংলাদেশের মুন্সি গঞ্জে রয়েছে বাবা আদমের স্মৃতিবিজড়িত একটি মসজিদ। বাবা আদম মসজিদ নামে পরিচিত এই

মাওয়া রিসোর্ট, মুন্সিগঞ্জ

মাওয়া রিসোর্ট, মুন্সিগঞ্জ

শহরের বদ্ধ পরিবেশ থেকে বেরিয়ে খোলা প্রাণে নিশ্বাস নিতে আমাদের মন হাঁপিয়ে উঠে। কিছুদিন প্রাকৃতিক পরিবেশে আনন্দময় অবকাশ যাপন এই যান্ত্রিক জীবনের অবসাদ নিমিষেই উড়িয়ে দেয়। দূরে কোথাও থেকে ঘুরে আসবেন কিন্তু এতো সময় কোথায়!আর তাই এই বিষয়কে মাথায় রেখে

মুন্সিগঞ্জের নৌকার হাটে একদিন

মুন্সিগঞ্জের নৌকার হাটে একদিন

বসিলা ব্রীজ পার হবার পরেই মুখে একটা শীতল বাতাসের ঝাপটা লাগলো।  প্রকৃতির এমন অভ্যর্থনা পেয়ে মনটাই ভালো হইয়ে গেল। আমরা চলেছি নৌকার হাট দেখতে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরের বাড়োই খালী বাজারে ! অনেক দিনের ইচ্ছে নৌকার হাট দেখার কিন্তু কবে হয় কখন

ভাগ্যকুল জমিদার বাড়ি: ‘বিলের ধারে প্যারিস নগর’

ভাগ্যকুল জমিদার বাড়ি: ‘বিলের ধারে প্যারিস নগর’

অতীত ইতিহাস আর কাল প্রবাহের সাক্ষী হিসেবে এখনো দেশের নানা জায়গায় আছে জমিদার বাড়ি ও তাদের নানা নিদর্শন৷ বিক্রমপুরের  ভাগ্যকুল জমিদার বাড়ি তেমনি একটি। আড়িয়াল বিলের ধারে অতীত শান শওকতের নিদর্শন নিয়ে অনেক কাল যাবত দাঁড়িয়ে আছে ভাগ্যকুল জমিদার বাড়ি।