;

বান্দরবান

মার্মা ভাষায় বান্দরবানের প্রকৃত নাম "রদ ক্যওচি ম্রো"

বান্দরবানের ইতিহাস

বান্দরবান জেলার নামকরণ নিয়ে একটি কিংবদন্তি রয়েছে। এলাকার বাসিন্দাদের প্রচলিত রূপ কথায় আছে অত্র এলাকায় একসময় বাস করত অসংখ্য বানর । আর এই বানরগুলো শহরের প্রবেশ মুখে ছড়ার পাড়ে পাহাড়ে প্রতিনিয়ত লবণ খেতে আসত। এক সময় অনবরত বৃষ্টির কারণে ছড়ার পানি বৃ্দ্ধি পাওয়ায় বানরের দল ছড়া পাড় হয়ে পাহাড়ে যেতে না পারায় একে অপরকে ধরে ধরে সারিবদ্ধভাবে ছড়া পাড় হয়।…

বিস্তারিত

নাইক্ষ্যংছড়ির উপবন পর্যটন লেক, বান্দরবান

নাইক্ষ্যংছড়ির উপবন পর্যটন লেক, বান্দরবান

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আর বৈচিত্র্যের লীলাভূমি বান্দরবান। উঁচুনিচু পথ, পাহাড়ের শরীর জুড়ে ঘন সবুজের সমারোহ যেন একেঁবেঁকে চলে গেছে গভীর থেকে আরো গভীরে। বৈচিত্র্যময় পাহাড়ি জেলা বান্দরবন এর রূপের জাদুর যেন শেষ নেই। প্রকৃতি তার আপন খেয়ালে এখানে মেলে ধরেছে তার

আরো কিছু গল্প বলার বাকি ছিলো- বান্দরবান থেকে ঘুরে এসে!!

আরো কিছু গল্প বলার বাকি ছিলো- বান্দরবান থেকে ঘুরে এসে!!

এতো পাহাড়ে যাও কেনো?? সমুদ্রে কেনো না?? —সমুদ্রে গেলে আমার বিষন্ন লাগে,সমুদ্রের বিশালতা সামনে থেকে দেখলে মনে হয়, দূর থেকে ধেয়ে আসা ঢেউ গুলো এই বুঝি আমকে টেনে নিয়ে যাবে। ভয় লাগে আমার। বুকের মধ্যে বিষন্নতা অনুভব করি কড়াভাবে। —আর

মিলনছড়ি হিলসাইড রিসোর্ট, বান্দরবান

মিলনছড়ি হিলসাইড রিসোর্ট, বান্দরবান

যান্ত্রিক জীবনের কংক্রিটের মিছিল থেকে বেরিয়ে খোলা প্রাণে নিশ্বাস নিতে আমাদের মন হাঁপিয়ে উঠে। কিছুদিন প্রাকৃতিক পরিবেশে আনন্দময় অবকাশ যাপন এই যান্ত্রিক জীবনের অবসাদ নিমিষেই উড়িয়ে দেয়। তাই নিরিবিলি ছুটি কাটানোর জন্য রিসোর্টের জুরি নেই । আর তা যদি হয়

সাঙ্গু: অপার্থিব সৌন্দর্যের পাহাড়ি এক নদী

সাঙ্গু: অপার্থিব সৌন্দর্যের পাহাড়ি এক নদী

বাংলাদেশ মানেই অসংখ্য নদ-নদী দিয়ে ঘেরা অবারিত প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। নদী শুধু এ দেশের মানুষের জীবন-জীবিকার অংশ নয়, নদী এদেশের সৌন্দর্যের অন্যতম এক অনুষঙ্গ। প্রকৃতিপ্রেমী ও ভ্রমণপিপাসুদের জন্য নদীর বুকে ঘুরে বেড়ানো দারুণ এক আকর্ষণের নাম। নদীর বুকে যারা ভেসে বেড়াতে

তাজিংডং – দূর্গম পাহাড়ের চূড়ায় স্বর্গের হাতছানি

তাজিংডং – দূর্গম পাহাড়ের চূড়ায় স্বর্গের হাতছানি

অপার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আর বৈচিত্র্যের আধার পাহাড়ীকন্যা বান্দরবান। উঁচুনিচু পথ, পাহাড়ের শরীর-জুড়ে ঘন সবুজের সমারোহ আর মেঘের লুকোচুরি খেলা বান্দরবনকে করেছে ভ্রমণ-প্রেমীদের জন্য এক স্বর্গ। বান্দরবানের পাহাড়গুলো যেমন দুর্গম তেমনি সৌন্দর্যের মায়াজালে ঘেরা। এই দুর্গম সৌন্দর্য হাতছানি দিয়ে ডাকে এ্যাডভেঞ্চারপ্রিয়

পাতাং ঝিরি ঝর্ণা, বান্দরবান

পাতাং ঝিরি ঝর্ণা, বান্দরবান

দুর্গম পাহাড়-অরণ্যে লুকানো ঝর্ণার সৌন্দর্য ভ্রমণ পিপাসুদের টানে এক দুর্নিবার আকর্ষণে। তাই সকল দুর্গম পথ পাড়ি দিয়ে তারা আস্বাদন করে অপরূপ সব ঝর্ণার সৌন্দর্য। সৌন্দর্যের রাণী বান্দরবানের ঝর্ণাগুলোর রূপ স্বপ্নিল সৌন্দর্যকেও হার মানায়। ঝর্ণা প্রেমীদের তাই প্রিয় একটি ভ্রমণ গন্তব্য

নীল দিগন্ত পর্যটন কেন্দ্র, বান্দরবান

নীল দিগন্ত পর্যটন কেন্দ্র, বান্দরবান

পাহাড়ের কোলে ভেসে বেড়ানো মেঘ, দিগন্তের নীলাভ সৌন্দর্যের দেশ পাহাড়িকন্যা বান্দরবান। প্রকৃতি তার আপন হস্তে বান্দরবানকে গড়ে তুলেছে , সাজিয়েছে আপন মহিমায়। এখানে পাহাড় সেজে থাকে সবুজের আবরণে। রাজকন্যার মত বর্ণিল সৌন্দর্যের ডানা মেলে দেয় প্রকৃতিতে। চলে মেঘ পাহাড়ের লুকোচুরি

বাইকে সাজেক, রাঙ্গামাটি, বান্দরবান, কক্সবাজারে দুজনে!

বাইকে সাজেক, রাঙ্গামাটি, বান্দরবান, কক্সবাজারে দুজনে!

আমাদের মোট ৭ দিনের (অক্টোবর ০৬ – অক্টোবর ১২, ২০১৮) এই ট্যুরের রুট প্ল্যানটি ছিলো এমন ঢাকা – খাগড়াছড়ি – সাজেক – কাপ্তাই – রাঙ্গামাটি – বান্দরবান – কক্সবাজার – ঢাকা। এই ট্যুরের প্রধান বিশেষত্ব হল, সম্পূর্ণ ট্যুরটি ছিল মোটরসাইকেলে,

শৈলপ্রপাত ঝর্ণা – বান্দরবান

শৈলপ্রপাত ঝর্ণা – বান্দরবান

রূপের রাণী পাহাড়ি জেলা বান্দরবান এর রূপের জাদুর যেন শেষ নেই। প্রকৃতি তার আপন খেয়ালে এখানে মেলে ধরেছে তার সৌন্দর্যের মায়াজাল। এক নিরন্তর সৌন্দর্যের বৈচিত্র্যতায় সর্বদাই মোহের জালে আটকে রাখে ভ্রমণ পিপাসুদের। বান্দরবানের পাহাড়, ঝর্ণা, লেক সবকিছুতেই রয়েছে বর্ণিল সৌন্দর্যের

ঋজুক ঝর্ণা বা রী স্বং স্বং ঝর্ণা, বান্দরবান

ঋজুক ঝর্ণা বা রী স্বং স্বং ঝর্ণা, বান্দরবান

গহীন পাহাড় আর অরণ্যে লুকানো ঝর্ণার সৌন্দর্য ভ্রমণ পিপাসুদের টানে এক দুর্নিবার আকর্ষণে। তাই সকল দুর্গম পথ পাড়ি দিয়ে তারা আস্বাদন করে অপরূপ সব ঝর্ণার সৌন্দর্য। অনেক সৌন্দর্যের উপাখ্যান বান্দরবানের ঝর্ণাগুলোর রূপ স্বপ্নিল সৌন্দর্যকেও হার মানায়। বান্দরবান মানেই পাহাড়ের দেশ,