;

চট্টগ্রাম বিভাগ

পার্বত্য বিভাগ ও সমুদ্র বন্দর

চট্টগ্রামের ইতিহাস

সীতাকুন্ড এলাকায় পাওয়া প্রস্তরীভূত অস্ত্র এবং বিভিন্ন মানবসৃষ্ট প্রস্তর খন্ড থেকে ধারণা করা হয় যে, এ অঞ্চলে নব্যপ্রস্তর যুগে অস্ট্রো-এশিয়াটিক জনগোষ্ঠীরবসবাস ছিল। তবে, অচিরে মঙ্গোলদের দ্বারা তারা বিতাড়িত হয় (হাজার বছরের চট্টগ্রাম, পৃ‌২৩)। লিখিত ইতিহাসে সম্ভবত প্রথম উল্লেখ গ্রিক ভৌগোলিক প্লিনির লিখিত পেরিপ্লাস। সেখানে ক্রিস নামে যে স্থানের বর্ণনা রয়েছে ঐতিহাসিক নলিনীকান্ত ভট্টশালীর মতে সেটি বর্তমানের সন্দীপ। ঐতিহাসিক ল্যাসেনের ধারণা…

বিস্তারিত

গিরিছায়া বিনোদন কেন্দ্র, চট্টগ্রাম

গিরিছায়া বিনোদন কেন্দ্র, চট্টগ্রাম

অসংখ্য আকর্ষণীয় পর্যটন নিদর্শনে ভরপুর পাহাড় কন্যা চট্টগ্রাম। পাহাড়, সাগর, আঁকাবাঁকা পাহাড়ি সড়ক,বন্যপ্রাণীর অভয়ারণ্য, ঝাউবনসহ অনেক দর্শনীয় স্থানে ভরপুর পুরো পার্বত্য চট্টগ্রাম। পাহাড়-মেঘ-বনানী এর অপার সৌন্দর্যে ঘেরা চট্টগ্রাম তাই ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য অত্যন্ত একটি প্রিয় ভ্রমণ গন্তব্য। অপার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত

নন্দীরহাটের সত্য সাহার জমিদার বাড়ি, চট্টগ্রাম

নন্দীরহাটের সত্য সাহার জমিদার বাড়ি, চট্টগ্রাম

মন্দিরের গ্রাম হিসেবে খ্যাত নন্দীরহাট। চট্টগ্রামের খাগড়াছড়ি-রাঙ্গামাটি মহাসড়কে হাটহাজারি থানার অন্তর্গত ঐতিহাসিক ও পুরাকীর্তির প্রাচীন নন্দীরহাট গ্রাম। ব্রিটিশ আমলে এই গ্রামে বেশ কয়েকজন জমিদার বাস করতেন। জমিদারদের রাজবাড়ির পাশাপাশি ছিলো তাদের তৈরি নানা মন্দির। সেই কারণেই এই গ্রামকে মন্দিরের গ্রাম

রক্তধারা : মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত স্মৃতসৌধ

রক্তধারা : মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত স্মৃতসৌধ

ইলিশের শহর চাঁদপুর ভ্রমণপ্রেমী ও ভোজন রসিক সবার জন্যই প্রিয় একটি ভ্রমণ গন্তব্য। মেঘনা নদীর অপার সৌন্দর্য আর তিন নদীর মোহনা চাঁদপুরকে করেছে অনন্য। শুধু নদীর সৌন্দর্যই নয়, ঐতিহাসিক স্থাপনা ও প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনও চাঁদপুরে কম নেই। পুরো চাঁদপুর জুড়ে ছড়িয়ে

মুছাপুর ক্লোজার, নোয়াখালী

মুছাপুর ক্লোজার, নোয়াখালী

নাগরিক জীবনে সকল ব্যস্ততা দূরে সরিয়ে দিয়ে প্রকৃতির সান্নিধ্য পেতে প্রায়ই আমাদের মন হাঁপিয়ে উঠে। ছুটির দিনে তাই প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত কোনো জায়গায় বেড়িয়ে আসলে মন্দ হয় না। চাইলে ঘুরে আসতে পারেন নোয়াখালীর ক্লোজার থেকে। দেখতে সমুদ্র সৈকতের মত এই নদীপাড়কে

রাঙামাটির ডিসি বাংলো

রাঙামাটির ডিসি বাংলো

পাহাড়ি কন্যা রাঙামাটির সর্বত্রই রয়েছে অসংখ্য বৈচিত্র্যময় সৌন্দর্যের ছড়াছড়ি। শহরের কালো ধোঁয়া থেকে দূরে চলে গিয়ে প্রশান্তির নিঃশ্বাস নিতে তাই ভ্রমণ পিপাসুরা ছুটে যায় রাঙামাটির কোলে। গহীন অরণ্য,পাহাড়ি প্রকৃতির অমোঘ রূপ, সবুজ অরণ্যে ঢাকা পাহাড়, কাপ্তাই হ্রদের বয়ে চলা স্রোতধারা,

শিলুয়ার শিল পাথর : ফেনীর প্রাচীন প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন

শিলুয়ার শিল পাথর : ফেনীর প্রাচীন প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন

আমাদের দেশের প্রত্নতাত্ত্বিক স্থানগুলো আমাদের অতীত ইতিহাস ও জাতিগত সত্তাকে তুলে ধরে। আর এসকল প্রত্নতাত্ত্বিক স্থানগুলো পর্যটকদের জন্যও আকর্ষণীয় দর্শনীয় স্থান। নানান জেলার নানান প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলো তাই পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় ভ্রমণ গন্তব্য। একেক জেলার একেক ঐতিহাসিক নিদর্শনগুলো বিভিন্ন ইতিহাসকে ধারণ

গঙ্গাসাগর দীঘি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

গঙ্গাসাগর দীঘি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

আমাদের দেশের অনাবিল গ্রাম-বাংলার সৌন্দর্যে দিগন্তজোড়া দিঘি এক অন্যতম অনুষঙ্গ। চিরায়ত বাংলার রূপে সৌন্দর্যের ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে সুবিশাল দিঘিগুলো। এই বাংলায় যেমন রয়েছে অনবদ্য প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের ভাণ্ডার আর প্রাচীন স্থাপনা তেমনি সেগুলোকে ঘিরে রয়েছে অসংখ্য উপকথা, লোককথা ও কল্পকাহিনী।

ভগবান টিলা, খাগড়াছড়ি

ভগবান টিলা, খাগড়াছড়ি

নাগরিক জীবন থেকে ছুট পেলেই কিছুটা প্রশান্তির খোঁজে মন চলে যেতে চায় প্রকৃতিঘেরা কোনো স্থানে। আর তাই খাগড়াছড়ি হতে পারে আপনার ভ্রমণের উপযুক্ত জায়গা। খাগড়াছড়ির সর্বত্রই ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে সৌন্দর্যের পসরা। আপনাকে মুগ্ধতার জালে আবদ্ধ করতে এখানে রয়েছে অসংখ্য দর্শনীয়

রাজাঝির দিঘী, ফেনী

রাজাঝির দিঘী, ফেনী

আমাদের দেশের অনাবিল গ্রাম-বাংলার সৌন্দর্যে দিগন্ত জোড়া দিঘি এক অন্যতম অনুষঙ্গ। চিরায়ত বাংলার রূপে সৌন্দর্যের ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে সুবিশাল দিঘিগুলো। এই বাংলায় যেমন রয়েছে অনবদ্য প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের ভাণ্ডার আর প্রাচীন স্থাপনা তেমনি সেগুলোকে ঘিরে রয়েছে অসংখ্য উপকথা, লোককথা ও

সাচার রথ : ভারতীয় উপমহাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম রথ

সাচার রথ : ভারতীয় উপমহাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম রথ

ইলিশের শহর চাঁদপুর ভ্রমণপ্রেমী ও ভোজন রসিক সবার জন্যই প্রিয় একটি ভ্রমণ গন্তব্য। মেঘনা নদীর অপার সৌন্দর্য আর তিন নদীর মোহনা চাঁদপুরকে করেছে অনন্য। শুধু নদীর সৌন্দর্যই নয়, ঐতিহাসিক স্থাপনা ও প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনও চাঁদপুরে কম নেই। পুরো চাঁদপুর জুড়ে ছড়িয়ে