;

শেরপুর

এক মণ ধানের দাম ছিল ১ টাকা

শেরপুরের ইতিহাস

শেরপুরের পূর্ব কথার কিছু উল্লেখ না করলে অনেক জানার বিষয় অজানাই থেকে যাবে। কাজেই অতি সংক্ষেপে তার বর্ণনা দেয়া হল। প্রাচীন কামরুপ রাজ্যের দক্ষিণ-পশ্চিম সীমান্ত অঞ্চলের আদি নাম পাওয়া যায় না। তবে এ অঞ্চলের হিন্দু শাসক দলিপ সামন্তের রাজ্যের রাজধানী গড় জরিপার উল্লেখ আছে। সম্রাট আকবরের সময় এ অঞ্চলের নাম দশ কাহনীয়া বাজু বলে ইতিহাসে পাওয়া যায়। শেরপুর পৌরসভার দক্ষিণ…

বিস্তারিত

রাজার পাহাড়, শেরপুর: সবুজের ঐশ্বর্যে সে কারও চেয়ে কোন অংশে কম নয়!!

রাজার পাহাড়, শেরপুর: সবুজের ঐশ্বর্যে সে কারও চেয়ে কোন অংশে কম নয়!!

সুউচ্চ গারো পাহাড়, ঢেউ খেলানো সবুজের সমারোহ, ছোট নদী ঢেউফা, ভোগাই সঙ্গে গারো, হাজং, কোচ সম্প্রদায়ের আদিবাসীর নিয়ে সৌন্দর্যের যেন দোকান খুলেছে জেলা শেরপুর। ভারতের মেঘালয় রাজ্যের সীমান্তবর্তী প্রান্তিক এই জেলায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে অসংখ্য ছোট বড় টিলা, শাল গজারীর

উপজাতি গ্রাম হাড়িয়াকোনা, শেরপুর

উপজাতি গ্রাম হাড়িয়াকোনা, শেরপুর

একান্ত অবসরে প্রকৃতির কাছাকাছি কোথাও যাবার মতো আর প্রাণ চঞ্চল কিছু হতে পারে না। তার উপর যদি এক সাথে পাহাড়, নদী এবং পাশাপাশি আদিবাসী জীবনধারা এবং সংস্কৃতি উপলব্ধি করতে পারেন স্বচক্ষে তাহলে নিশ্চিত সেই ভ্রমণ নানা অভিজ্ঞতায় পূর্ণতা লাভ করবে।

ঘুরতে গেলে রাজার পাহাড়, শেরপুর

ঘুরতে গেলে রাজার পাহাড়, শেরপুর

শহুরে  জনজীবন এর একঘেয়েমী কাটাতে মানুষের প্রথম পছন্দ প্রকৃতির কাছাকাছি কোথাও নিরিবিলি কাটানো। ক্লান্তি এবং অবসন্নতা কাটাতে সবুজ শ্যামল পরিবেশের সংস্পর্শের তুলনা নেই। আপনার অবসর এবং কাজের স্ট্রেস হতে মুক্তি পেতে সপ্তাহান্তে ঘুরে আসতে পারেন শেরপুরের রাজার পাহাড়। নিরিবিলি সবুজ

শেরপুরের ঐতিহ্যবাহী ছানার পায়েস

শেরপুরের ঐতিহ্যবাহী ছানার পায়েস

শুধু রসনা বিলাস নয়, খাদ্যগ্রহণকে শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার ভাবনা বরাবরই ছিল, আছে বাঙালির চিন্তা ও রুচিতে। খাবারের পদবৈচিত্র্য তাই এ জনপদজুড়ে। মিষ্টিজাতীয় খাবার খেতে কার না ইচ্ছে করে! তা যদি হয় শেরপুরের ঐতিহ্যবাহী ‘ছানার পায়েস’, তাহলে তো আর কথাই

মধুটিলা ইকো পার্ক, শেরপুর

মধুটিলা ইকো পার্ক, শেরপুর

পাহাড়ের ছায়ায় ঘেরা জনপদ শেরপুর। শেরপুর শহর থেকে ৩০ কি.মি. দূরে নালিতাবাড়ি। নালিতাবাড়ি থেকে ১৭ কি.মি. উত্তর পূর্ব দিকে অবস্থিত মধুটিলা ইকো পার্ক। ইকোপার্ক হচ্ছে প্রাকৃতিক পরিবেশে সৃষ্ট বিনোদন উদ্যান যা জীববৈচিত্রের জন্য বন্ধু সুলভ।গারো পাহাড় বিধৌত এলাকায় গড়ে উঠেছে

ঘাগড়া লস্কর খান মসজিদ, নেত্রকোনা

ঘাগড়া লস্কর খান মসজিদ, নেত্রকোনা

প্রায় সোয়া দু’ শ বছরের পুরনো স্থাপত্য শেরপুরের ঘঘড়া লস্কর ‘খান বাড়ী’ জামে মসজিদটি আজো ঠাই দাড়িয়ে আছে কালের সাক্ষ্যি হয়ে। মসিজদটি আজো অক্ষত অবস্থায় মসজিদটি’র বাইরে থেকে বিশাল আকার দেখা গেলেও ভিতরে খুব বেশী বড় নয়। এক গম্বুজবিশিষ্ট এ

শেরপুরের পৌনে তিন আনী জমিদার বাড়ি

শেরপুরের পৌনে তিন আনী জমিদার বাড়ি

শান্ত নিরিবিলি পরিবেশ, পর্যটকদের তেমন ভিড় নেই। কারন, শেরপুরের পৌনে তিন আনী জমিদার বাড়ি তেমন বিখ্যাত নয়। হয়ত আপনিও এর নামই শোনেন নি। কিন্তু চমৎকার এই জমিদার বাড়ীতে একবার গেলে যেন মনটাই পড়ে থাকবে সেখানে। বাড়িটি এখনো অক্ষতই আছে বলা

গোটা দেশে প্রসিদ্ধ শেরপুরের ছানার পায়েস

গোটা দেশে প্রসিদ্ধ শেরপুরের ছানার পায়েস

শিশু থেকে বুড়ো পর্যন্ত সবাই মিষ্টি পছন্দ করে। আর তা যদি হয় শেরপুরের ঐতিহ্যবাহী ‘ছানার পায়েস’ তাহলে তো কোন কথাই নেই। আমাদের দেশে অবশ্যই  বিয়ের উৎসব,বউ ভাত,আকিকা ,জন্মউৎসব প্রভৃতি অনুষ্ঠানে মিষ্টি খাওয়ার একটা ধুম থাকে। তাছারাও বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের প্রসিদ্ধ

গোটা দেশে প্রসিদ্ধ শেরপুরের ছানার পায়েস

গোটা দেশে প্রসিদ্ধ শেরপুরের ছানার পায়েস

শিশু থেকে বুড়ো পর্যন্ত সবাই মিষ্টি পছন্দ করে। আর তা যদি হয় শেরপুরের ঐতিহ্যবাহী ‘ছানার পায়েস’ তাহলে তো কোন কথাই নেই। আমাদের দেশে অবশ্যই  বিয়ের উৎসব,বউ ভাত,আকিকা ,জন্মউৎসব প্রভৃতি অনুষ্ঠানে মিষ্টি খাওয়ার একটা ধুম থাকে। তাছারাও বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের প্রসিদ্ধ