;

সাতক্ষীরা

১৭৬০ বর্গমাইল সুন্দরবন সাতক্ষীরায়

সাতক্ষীরার ইতিহাস

পূর্বে খুলনা জেলা, উত্তরে যশোর জেলা, পশ্চিমে চব্বিশ পরগনা (ভারত) জেলার বশির হাট মহকুমা এবং দক্ষিণ বঙ্গোপসাগর. আয়তন সাতক্ষীরা জেলা উত্তর দক্ষিণে লম্বা। জেলার আয়তন ৩,৮৫৮.৩৩ বর্গ কি:মি:। তন্মধ্যে দক্ষিণাংশের এক-তৃতীয়াংশ ভূমি সুন্দরবনের অন্তর্ভুক্ত। সাতক্ষীরার অংশে সুন্দরবনের অংশ ১৪৪৫.১৮ বর্গ কি:মি:। সাতক্ষীরা জেলা ৮৮°৪০' হতে ৮৯°৫০' পূর্ব দ্রাঘিমাংশ এবং ২২°৪৭' হতে ২৩°৪৭' উত্তর অক্ষাংশের মধ্যে অবস্থিত। অল্পকথায় গংগা ও ব্রক্ষ্মপুত্রের…

বিস্তারিত

মান্দারবাড়িয়া সমুদ্র সৈকত- অজানা এক অপূর্ব সৈকত

মান্দারবাড়িয়া সমুদ্র সৈকত- অজানা এক অপূর্ব সৈকত

কক্সবাজার, হিমছড়ি, ইনানী, কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে হয়ত অনেকেই একাধিকবার গিয়েছেন। কোলাহলপূর্ণ এই সৈকতগুলোতে গিয়ে যারা ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন তারা যেতে পারেন মান্দারবাড়িয়া সমুদ্র সৈকতে। আমাদের দেশে যে মান্দারবাড়িয়া নামে একটি সমুদ্র সৈকত আছে তা অনেক পর্যটকদেরই অজানা। এই সৈকতের কথা

সদলবলে সুন্দরবন: বাঘের খোঁজে, মধুর লোভে!

সদলবলে সুন্দরবন: বাঘের খোঁজে, মধুর লোভে!

সুন্দরবন। বিশ্বের অনিন্দ্য সুন্দর গরান বন। ইউনেস্কো স্বীকৃত বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী এই বনের নাম শুনলেই একটা আবেগ কাজ করতো মনের মধ্যে। এই আবেগকে সাড়া দিতে গিয়েই বাস্তবায়িত হলো সুন্দরবন ভ্রমণের কাহিনী! শুধু একা না কিংবা পাঁচ-সাতজনের একটা দল না! প্রায় ৯০

সুন্দরবন (৪র্থ পর্ব): রয়েল বেঙ্গল টাইগার

সুন্দরবন (৪র্থ পর্ব): রয়েল বেঙ্গল টাইগার

সুন্দরবনের বাঘ বিশ্বব্যাপী রয়েল বেঙ্গল টাইগার বলে পরিচিত। রয়েল বেঙ্গল টাইগার হলো সুন্দরবনের অন্যতম প্রধান আকর্ষণ। বাঘের বৈজ্ঞানিক নাম প্যান্থেরা টাইগ্রিস। বর্তমানে বাংলাদেশের মধ্যে সুন্দরবনই হলো বাঘের শেষ আবাসস্থল। সুন্দরবন (১ম পর্ব): নামকরণ ও ইতিহাস সুন্দরবন (২য় পর্ব): ভৌগলিক অবস্থা

সুন্দরবন (৩য় পর্ব): জীববৈচিত্র্য ও বন্যপ্রাণী

সুন্দরবন (৩য় পর্ব): জীববৈচিত্র্য ও বন্যপ্রাণী

বিশ্বের অন্যান্য ম্যানগ্রোভ বনের তুলনায় সুন্দরবন জীব বৈচিত্রে অধিকতর সমৃদ্ধ। এই প্রাকৃতিক লীলাভূমির ভৌগলিক গঠন ব-দ্বীপীয়, যার উপরিতলে রয়েছে অসংখ্য জলধারা এবং জলতরে ছড়িয়ে আছে মাটির দেয়াল(Mud walls) ও কাদা-চর(Mudflats)। সুন্দরবন (১ম পর্ব): নামকরণ ও ইতিহাস সুন্দরবন (২য় পর্ব): ভৌগলিক

সুন্দরবন (২য় পর্ব): ভৌগলিক অবস্থা ও ভূ-প্রকৃতি

সুন্দরবন (২য় পর্ব): ভৌগলিক অবস্থা ও ভূ-প্রকৃতি

বাংলাদেশের দক্ষিণ অংশে গঙ্গা ও ব্রহ্মপুত্রের বদ্বীপ এলাকায় অবস্থিত পৃথিবীর বৃহত্তম জোয়ারধৌত গরান বনভূমি (mangrove forest)। কর্কটক্রান্তির সামান্য দক্ষিণে ভারত ও বাংলাদেশের উপকূল ধরে বিস্তৃত ২১°৩০´-২২°৩০´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৯°০০´-৮৯°৫৫´ পূর্ব দ্রাঘিমার মধ্যবর্তী স্থানে এ বনের অবস্থান। নানা ধরনের গাছপালার

সুন্দরবন (১ম পর্ব): নামকরণ ও ইতিহাস

সুন্দরবন (১ম পর্ব): নামকরণ ও ইতিহাস

বাংলাদেশ, একটি ভূখণ্ড। যার বেশির ভাগ জায়গা জুড়ে নদ-নদী। তবে দক্ষিণাঞ্চলে বঙ্গোপসাগর উপকূলবর্তী অঞ্চলে অবস্থিত একটি প্রশস্ত বনভূমি রয়েছে যা বিশ্বের প্রাকৃতিক বিস্ময়াবলীর অন্যতম। একে “ম্যানগ্রোভ বন” বলা হয়। এর কিন্তু চমৎকার একটা নাম আছে। সুন্দরবনের অধিকাংশ গাছই চির সবুজ

তেতুলিয়া জামে মসজিদ, সাতক্ষীরা

তেতুলিয়া জামে মসজিদ, সাতক্ষীরা

তেতুলিয়া জামে মসজিদ বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার তেতুলিয়া গ্রামে অবস্থিত। ছয় গম্বুজ বিশিষ্ট এই মসজিদটি মুঘল স্থাপত্য নিদর্শন অনুকরণ ১৮৫৮-৫৯ (ধারনামতে) সালে নির্মাণ করা হয়। স্থাপত্য শিল্পের কারুকার্য খচিত এই মসজিদটি তেতুলিয়া জামে মসজিদ, খান বাহাদুর সালামতুল্লাহ মসজিদ এবং

মুসলিম স্থাপত্যশিল্পের এক অনন্য নিদর্শন, সাতক্ষীরা

মুসলিম স্থাপত্যশিল্পের এক অনন্য নিদর্শন, সাতক্ষীরা

আগ্রার তাজমহলের অপরুপ নির্মাণশৈলীকে সামনে রেখে মুসলিম স্থাপত্যশিল্পের এক অনন্য নিদর্শন তেঁতুলিয়া মসজিদ। অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষার্ধে সালাম মঞ্জিল প্রতিষ্ঠাতা বৃটিশ সরকারের সহকারী ম্যাজিস্ট্রেট জমিদার কাজী সালামদুল্লাহ মসজিদ টি নির্মান করেন। মসজিদটির নির্মাণ কাজ শেষ হয় ১৮১৫ খ্রিষ্টাব্দে । মসজিদটি সিকান্দার

যশোরেশ্বরী কালী মন্দির, সাতক্ষীরা

যশোরেশ্বরী কালী মন্দির, সাতক্ষীরা

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের যশোরেশ্বরী কালী মন্দির বাংলাদেশের একটি বিখ্যাত মন্দির। এ শক্তিপীঠটি সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার ঈশ্বরীপুর গ্রামে অবস্থিত।যশোরেশ্বরী নামের অর্থ “যশোরের দেবী”। হিন্দু ভক্তদের জন্য এটি একটি পবিত্র তীর্থস্থান। সত্য যুগে দক্ষ যজ্ঞের পর সতী মাতা দেহ ত্যাগ করলে মহাদেব সতীর