;

মাগুরা

মাগুর মাছের প্রসিদ্ধি থেকে ‘‘মাগুরা’’ নামকরণ হয়েছে

মাগুরার ইতিহাস

গঙ্গার প্রবাহের সঙ্গে সঙ্গে গঙ্গরাষ্ট্রে সভ্যতা বিস্তৃত হয়। ক্রমে ক্রমে মিথিলা, পৌন্ড্রবর্ধন ও বঙ্গ প্রভৃতি দেশে আর্যগণের উপনিবেশ স্থাপিত হতে থাকে। আজকের মাগুরা জেলা যে সীমানা নিয়ে গড়ে ওঠেছে তার পিছনে ভাগিরথী ও পদ্মার বিভিন্ন শাখা বা প্রশাখা ভাঙ্গা গড়ার ক্ষেত্রে ভূমিকা পালন করেছে। সাবেক ও বর্তমানে মধুমতি/গড়াই, কুমার, নবগঙ্গা, চিত্রা, ফটকি/যদুখালী, হানু, মুচিখালী ও ব্যাঙ নদী বিধৌত এই মাগুরা…

বিস্তারিত

রাজা সীতারাম রায়ের প্রাসাদ-দুর্গ, মাগুরা

রাজা সীতারাম রায়ের প্রাসাদ-দুর্গ, মাগুরা

বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলে এক সমৃদ্ধ জনপদের নাম মাগুরা। ১৮৪৫ সালে যশোর জেলার প্রথম মহকুমা করা হয় মাগুরাকে। মহকুমা হবার আগে মাগুরা অঞ্চল ভূষণা ও মহম্মদপুর নামেই সুবিখ্যাত ছিল। সপ্তদশ অষ্টাদশ শতকে এখানে সমৃদ্ধ এক জনপদের পত্তন ঘটে।সেই সময়কার নানা স্মৃতিচিহ্ন

সিদ্ধেশ্বরী মঠ, মাগুরা

সিদ্ধেশ্বরী মঠ, মাগুরা

সিদ্ধেশ্বরী মঠ মাগুরা জেলা শহর থেকে প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে সদর উপজেলার আঠারখাদা গ্রামের নবগঙ্গা নদীর তীরে অবস্থিত। যা মঠস্থল কালিকাতলা শ্মশান নামে পরিচিত ছিলো। প্রাচীন কাল হতে এই শ্মশানে একটি মঠ এবং সিদ্ধেশরী মাতার মন্ত্রে-মন্ত্রাঙ্কিত শিলাখন্ড ও কালীমূর্তি প্রতিষ্ঠিত

একনজরে মাগুরা

একনজরে মাগুরা

মাগুরা জেলা বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের একটি ছোট অঞ্চল। এটি খুলনা বিভাগের একটি জেলা।ঢাকা থেকে মাগুরার দূরত্ব ১৭৬ কিলোমিটার। বাস যাতায়াতের প্রধান মাধ্যম। বাসে মাগুরা থেকে ঢাকা যেতে ৫ ঘন্টা সময় লাগে। মাগুরায় কোনও ট্রেন যোগাযোগ নেই। ১০৪৮ বর্গ কিমি ক্ষেত্রফল বিশিষ্ট

শ্রীপুর জমিদার বাড়ি, মাগুরা

শ্রীপুর জমিদার বাড়ি, মাগুরা

শ্রীপুর জমিদার বাড়ি মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলা সদরের ১ কি.মি. দূরে অবস্থিত একটি ঐতিহাসিক স্থান। এখনো এখানে পাল রাজার রাজপ্রাসাদের ধ্বংশাবশেষ রয়েছে। শ্রীপুর জমিদারীর প্রতিষ্ঠা সারদারঞ্জন পাল চৌধুরী। শ্রীপুর ও পার্শ্ববর্তী এলাকা জমিদারের আওতাধীন ছিল। শ্রীপুর জমিদার বাড়ি বিশাল প্রাসাদতুল্য