;

খুলনা বিভাগ

সুন্দরবন, মংলার সৌন্দর্য বিধৌত জেলা

সাতক্ষীরার ইতিহাস

পূর্বে খুলনা জেলা, উত্তরে যশোর জেলা, পশ্চিমে চব্বিশ পরগনা (ভারত) জেলার বশির হাট মহকুমা এবং দক্ষিণ বঙ্গোপসাগর. আয়তন সাতক্ষীরা জেলা উত্তর দক্ষিণে লম্বা। জেলার আয়তন ৩,৮৫৮.৩৩ বর্গ কি:মি:। তন্মধ্যে দক্ষিণাংশের এক-তৃতীয়াংশ ভূমি সুন্দরবনের অন্তর্ভুক্ত। সাতক্ষীরার অংশে সুন্দরবনের অংশ ১৪৪৫.১৮ বর্গ কি:মি:। সাতক্ষীরা জেলা ৮৮°৪০' হতে ৮৯°৫০' পূর্ব দ্রাঘিমাংশ এবং ২২°৪৭' হতে ২৩°৪৭' উত্তর অক্ষাংশের মধ্যে অবস্থিত। অল্পকথায় গংগা ও ব্রক্ষ্মপুত্রের…

বিস্তারিত

এতিহ্যবাহী ষাট গম্বুজ মসজিদ, বাগেরহাট: আমাদের গর্বের স্থাপত্য

এতিহ্যবাহী ষাট গম্বুজ মসজিদ, বাগেরহাট: আমাদের গর্বের স্থাপত্য

বাংলাদেশের যে কয়েকটি স্থাপত্য সারা বিশ্বে জনপ্রিয় হয়েছে এবং প্রশংসিত হয়েছে তার মধ্যে প্রথম দিকেই আছে ষাট গম্বুজ মসজিদ। হযরত খানজাহান (রঃ) কর্তৃক নির্মিত অপূর্ব কারুকার্য খচিত পাঁচ শতাব্দীরও অধিক কালের পুরাতন বিশালায়তন এ মসজিদটি তাঁর দরগাহ হতে প্রায় দেড়

যশোরের ভাসমান সেতু

যশোরের ভাসমান সেতু

ভ্রমণ প্রেমী মাত্রই সুযোগ পেলে বেড়িয়ে পড়েন দূর থেকে আরো দূরে। দেশের আনাচে-কানাচের সৌন্দর্য খুঁজে বেড়ানোই ভ্রমণ প্রেমীদের নেশা। বাংলাদেশের প্রতিটি জেলার রয়েছে নিজস্ব সৌন্দর্য আর বৈচিত্র্যতা। খুলনা বিভাগের প্রাচীন একটি জেলা হলো যশোর। মাইকেল মধুসূদন দত্তের জন্মস্থান, কপোতাক্ষ নদ,

দেশের সবচেয়ে বড় ফুলের রাজ্য যশোরের গদখালি

দেশের সবচেয়ে বড় ফুলের রাজ্য যশোরের গদখালি

ফুল প্রতিটি মানুষের কাছেই পছন্দের এক বস্তু। ফুলের রং এবং সুগন্ধ মুগ্ধ করে তোলে সবাইকে। এজন্যই উপহারের অন্যতম প্রধান বস্তু হল ফুল। একটি ফুল যেখানে সবার মন জয় করে নেয় সেখানে যশোর জেলায় রয়েছে অসাধারণ এক ফুলের রাজ্য। যশোরের গদখালী

খুলনার সেরা হোটেলগুলো

খুলনার সেরা হোটেলগুলো

খুলনাতে বেশ ভালো কিছু হোটেল গড়ে উঠেছে। খুলনাতে কোন ফাইভ স্টার হোটেল না থাকলেও থ্রি স্টার মানের কিছু হোটেল রয়েছে এবং ১০০০ থেকে ৬০০০ টাকায় আপনি মানসম্মত রুম পেতে পারেন খুলনা শহরেই। খুলনা শহরের সেরা কয়েকটি হোটেলের ঠিকানা ও ফোন

যশোরের জামতলার মিষ্টি বা সাদেক গোল্লা

যশোরের জামতলার মিষ্টি বা সাদেক গোল্লা

দেশ-বিদেশে সমাদৃত যশোরের জামতলার রসগোল্লার। যার পরিচিত নাম সাদেক গোল্লা। দীর্ঘ ৬১ বছরের ইতিহাস-ঐতিহ্য ধরে রেখে নিজের শ্রেষ্ঠত্ব বজায় রেখেছে ওই মিষ্টি। প্রতিদিন সহস্রাধিক জামতলার মিষ্টি তৈরি হচ্ছে কিন্তু দুপুরের আগেই তা ফুরিয়ে যাচ্ছে। যশোর-সাতক্ষীরা সড়কের ছোট একটা বাজার জামতলা

যশোরের পৃথিবীখ্যাত খেঁজুর রস

যশোরের পৃথিবীখ্যাত খেঁজুর রস

যশোরের মানুষ খেঁজুর রসের গন্ধে মাতোয়ারা। প্রাচীন বাংলার ঐতিহ্য যশোর জেলার খেঁজুর গাছের। যশোর এক সময় খেজুরের গুড়ের জন্য বিখ্যাত ছিলো। শীত শুরু হওয়ার সাথে সাথে খেজুর গাছ (তোলা) কাটার প্রতিযোগিতা পড়ে গাছিদের মধ্যে। গৌরব আর ঐতিহ্যের প্রতীক এ অঞ্চলের

যশোর অঞ্চলের সেরা এবং ঐতিহ্যবাহী খাবার!

যশোর অঞ্চলের সেরা এবং ঐতিহ্যবাহী খাবার!

বাঙালির সব পালা-পার্বণ, সামাজিক অনুষ্ঠান, শুভ কাজ বা সংবাদ, জয়, কৃতিত্ব, পরীক্ষার ফল, চাকরি ও ব্যবসা-বাণিজ্যের উন্নয়নে আত্মীয়-স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশীর মধ্যে হাতে তৈরি মিষ্টান্ন উপহার দেওয়ার রীতি অনেক আগে থেকেই। শত বছর ধরে বাঙালি এই প্রথা মেনে আসছে। প্রাচীনকালে ‘গুড়জল’ দিয়ে

যশোর শহরের সেরা যে খাবার না খেলেই নয়!

যশোর শহরের সেরা যে খাবার না খেলেই নয়!

যশোর খুব ছিমছাম ছোট একটি শহর। এখানের খেজুরের গুড় অনেক বিখ্যাত, এছাড়া যশোর গেলে মাস্ট ট্রাই করবেন এরকম কিছু খাবার হচ্ছে- ১/ চার খাম্বার মোড়ের “জনি কাবাব” দোকানের কাবাব , ফ্রাই, চাপ এবং লুচি। ঢাকার অনেক বিখ্যাত চাপ/কাবাব এর দোকানের

বাগেরহাট নামটি যেভাবে হলো!

বাগেরহাট নামটি যেভাবে হলো!

খ্রীষ্টীয় চৌদ্দ শতকে সুলতানী আমলে আজকের বাগেরহাট ছিলো খলিফাতাবাদের রাজধানী। ‘খান-উল-আযম উলুঘ খান-ই-জাহান’ গৌড়ের সুলতানদের প্রতিনিধি হিসেবে বর্তমান যশোর, খুলনা ও বাগেরহাটের বড় একটি এলাকা নিয়ে গঠিত এই খলিফাতাবাদ শাসন করতেন। সমসাময়িক সময়ের পর্তুগীজদের তৈরি এই অঞ্চলের মানচিত্রে ‘কিউপিটাভাজ’ নামে

ঘোড়া দীঘি, বাগেরহাট: খানজাহান (রঃ) এর খননকৃত এ অঞ্চলের প্রথম দীঘি

ঘোড়া দীঘি, বাগেরহাট: খানজাহান (রঃ) এর খননকৃত এ অঞ্চলের প্রথম দীঘি

বাগেরহাট জেলা সদরের ষাটগম্বজ ইউনিয়নের সুন্দরঘোনা গ্রামে খান জাহান (রহ:) যে হাবেলী বা প্রশাসনিক কেন্দ্র গড়ে তোলেন তার নিকটে ষাটগম্বুজ মসজিদের পশ্চিম পাশে অবস্থিত ঘোড়া দীঘি। তবে সবচেয়ে মজার তথ্য হল, এটিই সম্ভাবত হযরত খানজাহান (রহ:) খনন কৃত এ অঞ্চলের