;

পিরোজপুর

কালীগঙ্গা, বলেশ্বর, দামোদর, সন্ধ্যা বিধৌত প্রাকৃতিক সবুজের লীলাভূমি

পিরোজপুরের ইতিহাস

‘‘ফিরোজ শাহের আমল থেকে ভাটির দেশের ফিরোজপুর, বেনিয়া চক্রের ছোঁয়াচ লেগে পাল্টে হলো পিরোজপুর।’’ সুন্দরবনের কোলঘেঁষা কালীগঙ্গা, বলেশ্বর, দামোদর, সন্ধ্যা বিধৌত প্রাকৃতিক সবুজের লীলাভূমি পিরোজপুর জেলা। বৈচিত্র্যে ভরপুর পিরোজপুর জেলার উত্তরে গোপালগঞ্জ, উত্তর-পূর্বে বরিশাল ও ঝালকাঠী, দক্ষিণ-পশ্চিমে বাগেরহাট এবং দক্ষিণ-পূর্বে বরগুনা জেলা অবস্থিত। জেলার একদিকে লবণপানি অন্য দিকে মিঠা পানির অবস্থান। ঊনবিংশ শতাব্দীর প্রথম দিক থেকে বাকেরগঞ্জ জেলার বিভিন্ন নদী…

বিস্তারিত

দেশের দক্ষিণাঞ্চলের লঞ্চ ভ্রমণের বিস্তারিত

দেশের দক্ষিণাঞ্চলের লঞ্চ ভ্রমণের বিস্তারিত

বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। দেশের প্রায় প্রতিটি প্রান্ত ভ্রমণের জন্যই রয়েছে ছোট বড় নৌ পথ। তবে বিশেষ ভাবে দেশের দক্ষিণাঞ্চলে যাতায়াতের জন্য সহজ ও আরামদায়ক উপায় হচ্ছে নৌপথ। আর এই নৌপথের প্রধান বাহন লঞ্চ। ঢাকা থেকে নোয়াখালী, বরিশাল, মাদারীপুর, ভোলা, পটুয়াখালী,

রিভারভিউ ইকোপার্ক, পিরোজপুর

রিভারভিউ ইকোপার্ক, পিরোজপুর

ডি. সি. পার্ক পিরোজপুর জেলার একটি ঐতিহ্যবাহী পার্ক ।এই পার্ক বলেশ্বর নদীর তীরে অবস্থিত। এখানে অবস্থিত একটি ওয়াচ টাওয়ার থেকে বলেশ্বর নদীর প্রাকৃতিক এবং মনোরম দৃশ্য উপভোগ করা যায়। এই পার্কটি পিরোজপুর রিভারভিউ ইকোপার্ক নামেও পরিচিত। সাবেক জেলা প্রশাসক জনাব

রায়েরকাঠী জমিদার বাড়ি, পিরোজপুর

রায়েরকাঠী জমিদার বাড়ি, পিরোজপুর

জেলা শহর থেকে মাত্র তিন কিলোমিটার দূরে রায়েরকাঠী জমিদার বাড়ির অবস্থান। প্রায় তিনশত পঞ্চাশ বছরের পুরোনো এই বাড়িতে রয়েছে হয় রাজভবন, নহবৎখানা, অতিথিশালা, নাট্যশালা সহ অসংখ্য মন্দির। এখানে ছোট বড় প্রায় দু’শ অট্টালিকা ছিলো। তন্মধ্যে ৪০ বা ৫০টি গগণচুম্বী অট্টালিকা

জেনে নিন পিরোজপুর জেলার পুরাকীর্তির স্থাপনা সম্পর্কে

জেনে নিন পিরোজপুর জেলার পুরাকীর্তির স্থাপনা সম্পর্কে

এক নজরে দেখে নিন পিরোজপুর জেলার পুরাকীর্তির স্থাপনাগুলো… রায়েরকাঠী জমিদার বাড়ি প্রায় সাড়ে তিনশত বছর আগে এখানে প্রতিষ্ঠা লাভ করেছিলো এক ঐতিহাসিক জমিদার বংশ। জেলা শহর থেকে একটু উত্তরে মাত্র তিন কিলোমিটার দূরে তার অবস্থান। এই জমিদার বাড়িতে নির্মিত হয়

মিষ্টি দিদির মিষ্টির দোকান, পিরোজপুর

মিষ্টি দিদির মিষ্টির দোকান, পিরোজপুর

স্বামীর মৃত্যুর পর ভেঙে পড়ার কথাই ছিল লিপিকা দেবনাথের। কিন্তু দুটি শিশুসন্তান নিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছেন তিনি। স্বামী রঞ্জন দেবনাথের মৃত্যুর দুই দিন পর লিপিকা স্বামীর রেখে যাওয়া মিষ্টির দোকানের হাল ধরেন। অভিজ্ঞতা ছাড়াই দুই বছর ধরে নিজে চালাচ্ছেন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান। এখন