;
বিশ্বের বিখ্যাত কয়েকটি বই মেলা
ফ্রাঙ্কফুর্ট বুক ফেয়ার

বইয়ের সঙ্গে প্রায় প্রতিটি মানুষেরই রয়েছে আত্মার নিবিড় সম্পর্ক। বই থেকে বহু মানুষ নিজেদের মন-মানসিকতা-গঠন এবং আত্মার খাদ্য-খোরাক খুঁজে নেয়। বই হল মেধা বিকাশ এবং মানসিক পরিতৃপ্তির অন্যতম আশ্রয়স্থল। যুগ যুগ ধরে সারা পৃথিবী জুড়ে বিচিত্র সব মেলার আয়োজন চলে আসছে। সেসব মেলার জিনিসপত্রে বিচিত্রতা দেখতে পাওয়া যায়। এতসব বৈচিত্র্য না হওয়া সত্ত্বেও একমাত্র বইমেলা নিয়ে বিশ্বের প্রতিটি দেশের মানুষের মধ্যে প্রবল এক আবেগ কাজ করে। এজন্য বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশেই ছোট বড় আকারে আয়োজিত হয় বই মেলা। হাজারও দর্শনার্থীর ভিড়ে জমে থাকে এসব আয়োজন। আজ থাকছে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে আয়োজিত বিখ্যাত কয়েকটি বইমেলার খবর।

ফ্রাঙ্কফুর্ট বুক ফেয়ার:

জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্টের ফ্রাঙ্কফুর্ট ট্রেড ফেয়ার গ্রাউন্ডে প্রতি বছর মধ্য অক্টোবরে অনুষ্ঠিত হয় বিশ্বের সবচেয়ে বড় বইমেলা। বইমেলাটিতে মূলত প্রকাশক এবং প্রকাশনা ব্যবসার সঙ্গে জড়িতদের কেন্দ্র করে অনুষ্ঠিত হয়। পাঁচদিন ব্যাপী এই মেলার প্রথম তিনদিন নির্ধারিত থাকে শতাধিক দেশ থেকে আগত পাবলিশিং কোম্পানি এবং বিভিন্ন মাল্টি-ন্যাশনাল কোম্পানির প্রতিনিধিদের জন্য আয়োজন। শেষ দুই দিন সাধারণ দর্শকদের জন্য মেলা উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। প্রতি বছর প্রায় তিন লাখ দর্শকের সমাগম ঘটে এই মেলায়। ফ্রাঙ্কফুর্ট বইমেলাটি ১৭ শতক থেকে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। মাঝে কিছু দিন বন্ধ থাকলেও দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের পর ১৯৪৯ সাল থেকে সেন্টপল চার্চে এই বইমেলা পুনরায় আরম্ভ হয়। এরপর থেকে মেলাটি নিয়মিত অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। ফ্রাঙ্কফুর্ট বই মেলাকে বিশ্বের প্রধান বইমেলা হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে। এটি মূলত বই বিক্রির জন্য নয় বরং প্রকাশনা সংক্রান্ত ইন্টারন্যাশনাল পাবলিশিং রাইটস, লাইসেনিং ফিস্, ডিলস এবং ট্রেডিং ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখে।

কায়রো ইন্টারন্যাশনাল বুক ফেয়ার:

বই নিয়ে বিশ্বের আরেকটি বড় আয়োজন হল কায়রো বইমেলা। যার সূচনা হয় ১৯৬৯ সালে। এটি আরব বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীন এবং বড় বইমেলা। এ মেলা জানুয়ারি মাসের শেষ সপ্তাহে মাদিনাত নাসারের কায়রো ইন্টারন্যাশনাল ফেয়ার গ্রাউন্ডে শুরু হয় এবং তিন সপ্তাহের বেশি সময় ধরে চলতে থাকে। আরবি, ইংরেজি এবং আরও নানান ভাষার সাহিত্যের বই এই মেলায় পাওয়া যায়। এই বই মেলায় একশ’রও বেশি দেশ থেকে আগত বই বিক্রেতা এবং দুই লাখের অধিক পাঠকের সমাবেশ হয়। ফ্রাঙ্কফুর্ট বইমেলার পর একে দ্বিতীয় প্রধান বইমেলা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়

বিশ্বের বিখ্যাত কয়েকটি বই মেলা
কায়রো ইন্টারন্যাশনাল বুক ফেয়ার

মস্কো ইন্টারন্যাশনাল বুক ফেয়ার:

১৯৭৭ সালের পহেলা সেপ্টেম্বর প্রথমবারের মত রাশিয়াতে মস্কো বইমেলা শুরু হয়। এরপর, প্রতি বছর সেপ্টেম্বরের তিন তারিখ থেকে সাত তারিখ পর্যন্ত মস্কো এক্সিভিশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয় মস্কো ইন্টারন্যাশনাল বুক ফেয়ার। রাশিয়াসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রকাশনা সংস্থাগুলো এই মেলায় অংশ নিয়ে থাকে। প্রতিদিনই এই মেলার বিশেষ আকর্ষণ হিসাবে নানান ওয়ার্কশপ, গোল টেবিল বৈঠক, লেখকদের নিজস্ব পাঠ, সাক্ষাৎকার এবং বইয়ে প্রিয় লেখকের অটোগ্রাফ সংগ্রহের সুযোগ থাকে। এই মেলায় বিশেষ আয়োজনে থাকে শিশুদের জন্য ‘লেটস রিডস’ নামে একটি কর্নার। যেখানে শিশু সাহিত্য নিয়ে আলোচনা করা হয়। আধুনিক ডিজিটাল প্রিন্টিং টেকনোলজি বিষয়টি মেলার এক অংশে দেখান হয়। মেলায় প্রতি বছর একজন লেখককে সম্মানসূচক পুরস্কার প্রদান করা হয়ে থাকে।

লন্ডন বুক ফেয়ার:

১৯৭১ সালে ছোট প্রকাশকরা যেন নিজেদের বই লাইব্রেরিয়ানদের দেখাতে পারেন, তার জন্য বার্নাস হোটেলের বেসমেন্টে কিছু বই প্রদর্শনের উদ্যোগ নিয়েছিলেন লাইওনেল লেভিনথাল। সে উদ্যোগই বর্তমানে পৃথিবীর অন্যতম প্রধান বইমেলার মর্যাদা লাভ করেছে। নাম বদলে ১৯৭৭ সাল থেকে ‘লন্ডন বুক ফেয়ার’ নামে এ মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। বর্তমানে একশ’টিরও বেশি দেশ থেকে আগত পঁচিশ হাজারের বেশি প্রকাশক, বই বিক্রেতা, এজেন্ট, লাইব্রেরিয়ান ও মিডিয়াকর্মী এই মেলায় অংশগ্রহণ করে। প্রকাশকরা আসেন তাদের বইয়ের আগাম প্রদর্শন এবং অনুবাদ বিষয়ক রাইটের ব্যাপারে অন্য প্রকাশকদের সঙ্গে আলোচনা করতে।

মীর মাইনুল ইসলাম

Facebook Comments
বিশ্বের বিখ্যাত কয়েকটি বই মেলা