;
পুত্রাজায়া
পুত্রা মসজিদ

মালয়েশিয়ার ফেডারেল সরকারের রাজধানী হিসেবে কুয়ালা লামপুরের জায়গায় পুত্রজায়াকে বেছে নেয়া হয় সেই দেশের অর্থনীতি দ্রুত চাঙ্গা হয়ে ওঠার পর। কুয়ালা লামপুরের ঠিক বাইরেই পুত্রজায়া অবস্থিত এবং এর নামকরণ হয়েছে মালয়েশিয়ার প্রথম প্রধানমন্ত্রী টুঙ্কু আবদুর রহমান পুত্রা এর নামানুসারে। পুত্রজায়াকে এখন প্রাথমিকভাবে মালয়েশিয়ার প্রথম ইন্টেলিজেন্ট গার্ডেন সিটি নামে অভিহিত করা হয় এর স্থাপত্য শিল্পের কারণে। মালয়েশিয়াতে হাজারও পর্যটক প্রতি বছর ঘুরতে যায় এবং পুত্রাজায়ার সৌন্দর্য তাদের মুগ্ধ করে। আজ পুত্রাজায়ার সব বিখ্যাত স্থান গুলোর গল্পই শুনাব।

পুত্রা মসজিদ:

মসজিদ পুত্রা হিসেবেই মসজিদটি অধিক পরিচিত। শহরের এই প্রধান মসজিদের নির্মাণ কাজ ১৯৯৯ সালে শেষ হয়। এটা পারদানা পুত্রা এবং পুত্রাজায়া হ্রদের পাশেই অবস্থিত। রাতে এখানে জ্বালান হয় অসাধারণ বাতি যা এই মসজিদটির সৌন্দর্য বহুগুণে বাড়িয়ে দেয়।

আলামান্ডা পুত্রজায়া:

কোন শহরই সম্পূর্ণ হতে পারে না যদি না সেখানে বিশ্ব মানের শপিং মল না থাকলে। আলামান্ডা পুত্রাজায়া শপিং কমপ্লেক্স শহরে নির্মিত প্রথম শপিং কমপ্লেক্স যেখানে আছে বিভিন্ন ধরনের দোকানপাট, রেস্তোরাঁ, বৌল খেলার পথ, মুভি থিয়েটার এবং একখানি ফুড কোর্ট।

পুত্রাজায়া - আলামান্ডা

মিলেনিয়াম মনুমেন্ট:

মালয়েশিয়ার পুত্রজায়ায় অবস্থিত মিলেনিয়াম মনুমেন্ট ঠিক ওয়াশিংটন ডিসির ওয়াশিংটন মনুমেন্টের আদলে তৈরি করা হয়েছে। পুত্রজায়ার জাতীয় মনুমেন্ট হিসেবে বিবেচিত এই মনুমেন্ট একটা ধাতুনির্মিত চতুষ্কোণ স্মৃতিস্তম্ভ। ধাতব প্লেটে চিত্রাঙ্কন করা শ্রীমণ্ডিত এই স্মৃতিস্তম্ভ মালয়েশিয়ার জাতীয় ইতিহাস ও মূহুর্তের ছবি শোভিত রয়েছে।

পুত্রা সেতু:

শহরের অন্যতম প্রধান পুত্রা সেতু ইরানের খাজু সেতুর অনুকরণে তৈরি করা হয়েছে। ৪৩৫ মিটার দীর্ঘ পুত্রা ব্রিজ সরকারের সাথে মিশ্র উন্নত শহর উপকণ্ঠকে যুক্ত করেছে সেইসাথে যুক্ত করেছে পুত্রা স্কোয়ার ও শহরের প্রধান সড়ককে। তিনটি স্তরে এই সেতু নির্মিত হয়েছে। একটিতে মনোরেল, একটিতে যানবাহন ও অন্যটিতে পথচারীরা চলাচল করে।

পুত্রাজায়া হ্রদ:

৬৫০ হেক্টরের জায়গা জুড়ে এই মনুষ্যনির্মিত হ্রদটি নগরীকে ঠাণ্ডা রাখার উদ্দেশ্যে নির্মিত হয়। এটা এখন বিভিন্ন জলক্রীড়ার অন্যতম প্রধান একটি জায়গায় পরিণত হয়েছে। এখানে বোট চ্যাম্পিয়নশিপ এবং এশিয়ান ডিঙি নৌকা বাইচ চ্যাম্পিয়নশিপ প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয়।

স্বাধীনতা স্কয়ার:

পুত্রাজায়া শহরে একটি ঐতিহাসিক নিদর্শন হল স্বাধীনতা স্কয়ার। এই শহর স্কোয়ার পারদানা পুত্রার পরেই অবস্থিত। বিভিন্ন ছুটির দিন গুলোতে এখানে আনন্দ উৎসব আয়োজনের সাথে সাথে বিভিন্ন দিবসে প্যারেডের আয়োজনও থাকে।

হিবিস্কাস গার্ডেন :

হিবিস্কাস গার্ডেন মালয়েশিয়া দেশটির জাতীয় ফুলের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে তৈরি করা হয়েছে। এখানে আপনি ২,০০০ বিভিন্ন জাতের হিবিস্কাস পুষ্পগাছ পাবেন। প্রকৃতির অসাধারণ বৈচিত্র্যে হারিয়ে যাবার জন্য এটি যেন এক আদর্শ জায়গা।

পুত্রাজায়া

মীর মাইনুল ইসলাম

Facebook Comments
ইন্টেলিজেন্ট গার্ডেন সিটি পুত্রজায়ার যত বিখ্যাত স্থান